এখন সকাল ১১:৫০ | আজ রবিবার | ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | গ্রীষ্মকাল | ১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

ফুলবাড়ীয়া প্রতিদিন

এগিয়ে থাকে, এগিয়ে রাখে

জাতীয় সবশেষ

রাজধানীর তাপমাত্রা ৪০ পার, আপাতত ‘সুখবর’ নেই

তীব্র গরমে পুড়ছে সারা দেশ। রাজধানী ঢাকাতেও তীব্র গরমে জনজীবনে হাঁসফাঁস অবস্থা। শনিবার (২০ এপ্রিল) গতকালের তুলনায় প্রায় দুই ডিগ্রি বেড়েছে তাপমাত্রা। ঢাকায় আজ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৪০ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। চলতি মৌসুমে এটাই রাজধানীর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

অন্যদিকে আজ দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪২ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে যশোরে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল চুয়াডাঙ্গায় ৪২ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গরমের এই তীব্রতার মধ্যে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, আপাতত গরম থেকে নিস্তার পাওয়ার কোনো সুখবর নেই। কারণ আগামী অন্তত দুই দিন তাপমাত্রা কমার সম্ভাবনা দেখছেন না আবহাওয়াবিদরা।

আবহাওয়াবিদ মো. শহিদুল ইসলাম জানান, এই তাপপ্রবাহ চলতি সপ্তাহজুড়ে থাকতে পারে। এ তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রি ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে আমরা আশঙ্কা করছি। আজকে একবারে ৯ অঞ্চলে তাপমাত্রা যে ৪০ ডিগ্রির উপরে উঠেছে, এর আগে কবে এমন উঠেছিল কি না তা এখনই বলা সম্ভব না। আমরা তথ্য বিশ্লেষণ করছি। সর্বশেষ পাবনায় গত বছরে একদিন ৪৩ ডিগ্রিতে তাপমাত্রা উঠেছিল।

আগামী দু’তিনদিন তাপমাত্রা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদ কাজী জেবুন্নেছা। তিনি বলেন, আগামী ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত তাপমাত্রা মোটামুটি এরকমই থাকবে। তেমন বিস্তৃত পরিসরে ভারী বৃষ্টির কোনো পূর্বাভাস নেই।

বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ কিছুটা কমে আসছে জানিয়ে তিনি বলেন, আগের তুলনায় এখন জলীয়বাষ্পের পরিমাণ কমে আসছে। এটি একটি ভালো দিক। অস্বস্তি কিছুটা কম হবে। তবে তাপমাত্রা ক্রমেই বাড়ছে।

তিনি বলেন, আগামী দিনগুলোতে সিলেট এবং চট্টগ্রাম অঞ্চলে বিচ্ছিন্নভাবে দু-এক জায়গায় হালকা বৃষ্টি হতে পারে। তবে বলার মতো তেমন কোনো বৃষ্টি এ মাসের বাকি দিনগুলোতে নেই।

এদিকে তাপপ্রবাহের কারণে আবহাওয়া অধিপ্ততর তিন দিনের জন্য (১৯ থেকে ২১ এপ্রিল) তাপপ্রবাহের সতর্কবার্তা বা হিট অ্যালার্ট জারি করে। এই অবস্থায় শনিবার সরকার ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়িয়ে দিয়েছে।